বিশেষজ্ঞরা বলছেন মোটা মানুষের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি!

343
বিশেষজ্ঞরা বলছেন মোটা মানুষের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি!
বিশেষজ্ঞরা বলছেন মোটা মানুষের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি!

বিশেষজ্ঞরা বলছেন মোটা মানুষের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি!

অতিরিক্ত ওজন আর স্থূলতা- বর্তমানে বেশির ভাগ মানুষেরই চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। অতিরিক্ত ওজন আর স্থূলতার কারণে শরীরে একাধিক রোগ-ব্যাধি বাসা বাঁধে।

ভাবছেন, করোনা আতঙ্কের কারণে হঠাৎ আবার অতিরিক্ত ওজন আর স্থূলতা নিয়ে মাথা ঘামানোর কী হলো! কারণ হলো মার্কিন গবেষকদের দাবি, অতিরিক্ত ওজন আর স্থূলতার জন্যই আমেরিকায় করোনাভাইরাস মহামারির আকার নিয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা আর ভয়াবহতায় চীন, ইতালি, স্পেনকেও পেছনে ফেলে দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র।

গবেষকদের দাবি, যাদের বিএমআই ২৫ থেকে ৪০ বা তার বেশি, তাদের মধ্যেই করোনায় আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেশি। বিএমআই কী? আদর্শ ওজন নির্ণয়ের পদ্ধতিতে একজন ব্যক্তির ওজন কিলোগ্রামে মাপা হয় এবং উচ্চতা মিটারে মাপা হয়। ওজনকে উচ্চতার বর্গফল দিয়ে ভাগ করা হয়। এই ভাগফলকেই বিএমআই বলা হয়। বিএমআই ১৮ থেকে ২৪-এর মধ্যে হলে তা স্বাভাবিক বলে মনে করা হয়।


আরও পড়ুন – আজ সারাদেশে নতুন করে আরো ৪ জনের মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ১৩৯

‘সেন্টার্স ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন’-এর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ৩৫ শতাংশ থেকে ৪০ শতাংশ নাগরিক স্থূলতার শীকার। সম্প্রতি একটি পরিসংখ্যান সামনে এসেছে।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, আমেরিকায় এ পর্যন্ত যতজন ব্যক্তি করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তার মধ্যে প্রায় ৬৪ শতাংশের বিএমআই ২৫ থেকে ৪০। মোট আক্রান্তের ৭ শতাংশের অবস্থা সঙ্কটজনক যাদের বিএমআই ৪০-এরও বেশি।

তাই বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ হলো, আমেরিকার থেকে শিক্ষা নিয়ে নজর দিতে হবে শরীরের বাড়তি মেদ ঝরানোর বিষয়ে নজর দিতে হবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা সংক্রমণের ফলে অতিরিক্ত মোটা মানুষদের প্রাণহানির ঝুঁকি বেশি। এর পিছনে কতগুলো কারণ রয়েছে। আসুন সেগুলো সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক…

১) স্থূলতার কারণে এমনিতেই দীর্ঘস্থায়ী কিছু রোগ শরীরে বাসা বাঁধে। এই কারণে তাদের সহজেই থাবা বসাতে পারে করোনাভাইরাস।

২) অতিরিক্ত ওজন আর স্থূলতায় ভুগছেন যে সমস্ত ব্যক্তি, তাদের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতাও অনেক কম হয়। ফলে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিও বেশি।

৩) অধিকাংশ মোটা মানুষেরই ডায়াবেটিস, কিডনি, হার্ট, উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা আগে থেকেই থাকে। আর এই ধরনের দীর্ঘস্থায়ী ব্যাধির উপস্থিতিতে আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করতে পারে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ।

৪) ওজন বেশি হলে ফুসফুসের উপর অতিরিক্ত চাপ পড়ে আর করোনাভাইরাস যেহেতু ফুসফুসকেই সবার আগে আক্রমণ করে, তাই মোটা মানুষের ক্ষেত্রে ঝুঁকি কয়েকগুণ বেড়ে যায়।

সমীক্ষা বলছে, এখনও পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে যারা মারা গিয়েছেন তাদের মধ্যে অধিকাংশের শরীরে ডায়াবেটিস, কিডনির সমস্যা, হার্ট, ওবিসিটি, উচ্চ রক্তচাপের মতো শারীরিক সমস্যা আগে থেকেই ছিল।

সূত্র: জি-নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here